বৃহস্পতিবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
  • প্রচ্ছদ » অর্থনীতি » ২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্বের ২৬ তম বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ হবে বাংলাদেশ



২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্বের ২৬ তম বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ হবে বাংলাদেশ


আলোকিত সময় :
26.01.2019

২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশে বিশ্বের ২৬তম বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ হবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, অর্থনৈতিক অগ্রগতির সূচকে বিশ্বের শীর্ষ ৫টি দেশের একটি এখন বাংলাদেশ। প্রাইস ওয়াটার হাউস কুপারস এর প্রক্ষেপণ অনুযায়ী ২০৪০সাল নাগাদ বাংলাদেশের অর্থনীতি বিশ্বে ২৩তম স্থান দখল করবে। শুধু তাই নয় এইচ. বি. এস. সির প্রক্ষেপণ অনুযায়ী ২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ বিশ্বের ২৬তম বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ হবে বাংলাদেশ।

শুক্রবার জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণের সময় টানা তৃতীয় বারের মতো দায়িত্ব নেওয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশে বর্তমানে দারিদ্রের হার ২১.৮ শতাংশে হ্রাস পেয়েছে যা ২০০৫-০৬ সালে বিএনপি সরকারের আমলে ছিলো ৪১.৫ শতাংশ। মাথাপিছু আয় ৫৪৩ মার্কিন ডলার থেকে ১হাজার ৭৫১ ডলারে উন্নীত হয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৩ বিলিয়ন থেকে বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ৩৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।এসময় প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বিএনপি সরকারের ২০০৫-৬ অর্থবছরে বাজেটের আকার ছিলো মাত্র ৬১ হাজার কোটি টাকা। যা ৭.৬ গুন বৃদ্ধি করে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে আমরা ৪ লাখ ৬৪হাজার ৫৭৩ কোটি টাকার বাজেট দিয়েছি। বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির পরিমাণ ১লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকা। যার নব্বই ভাগ বাস্তবায়ন হয় নিজস্ব অর্থায়নে। কারও কাছে আমাদের হাত পেতে চলতে হয় না। তিনি বলেন, গত অর্থবছরে আমাদের জিডিপি’র প্রবৃদ্ধির হার ছিলো ৭.৮৬ শতাংশ। মূল্যস্ফীতি ৫.৪ শতাংশে নামিয়ে আনা হয়েছে। ফলে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার আওতায় রয়েছে।

আগামী ৫বছরে দেড় কোটি কর্মসংস্থানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে আমাদের ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার কাজ এগিয়ে চলছে। এসব অর্থনৈতিক অঞ্চলে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ করছেন।

এভাবেই অর্থনৈতিক উন্নয়ন অব্যাহত থাকবে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, আমরা তরুণ উদ্যোক্তাদের জন্য সহজ শর্তে আর্থিক সহায়তা প্রদানসহ বিভিন্ন সুবিধা নিশ্চিত করা, তরুণ নারী উদ্যোক্তাদের জন্য বিশেষ সুবিধা ও প্রণোদনা প্রদান, সরকারি উদ্যোগে কর্মসংস্থান পরিকল্পনা, তরুণ উদ্ভাবকদের উদ্ভাবনসমূহ আন্তর্জাতিকভাবে পেটেন্ট করার উদ্যোগ গ্রহণ করার কাজ করছি। শুধু তাই নয় দেশ-বিদেশে কর্মে নিয়োগের জন্য কারিগরি বিষয়ে দক্ষ কর্মী তৈরি এবং কারিগরি জ্ঞানসম্পন্ন দক্ষ জনবল গড়ে তোলার জন্য প্রতিটি উপজেলায় একটি করে কারিগরি কলেজ স্থাপন করার লক্ষ্যে কাজ করছি আমরা।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি