রবিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮



ফুলবাড়ীতে এনজিও কর্মির সাথে ঋণ গৃহিতার সংঘর্ষে,উভয় পক্ষের দু’জন আহত


আলোকিত সময় :
12.09.2018

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি :

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে ঋৃণ দেয়া নিয়ে বিরোধের জের ধরে বেসরকারী সংস্থা ব্রাক এর মাঠ কর্মির সাথে ঋণ গৃহিতার সংঘর্ষে ব্রাকের মাঠ কর্মিসহ উভায় পক্ষের দুইজন আহত হয়েছে।আহতদের উদ্ধার করে ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভতির্ করা হয়েছে।

পৌর এলাকার উত্তর সুজাপুর গ্রামে গত ১০ সেপ্টেম্বর সোমবার সন্ধায় এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভায় পক্ষ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

সংঘর্ষে আহতরা হলেন, ব্রাকের মাঠ কর্মি মিমি আক্তার (৩৫) ও ঋৃণ গ্রহনের জন্য আবেদনকারী উত্তর সুজাপুর গ্রামের আয়নুল ইসলামের স্ত্রী শাহানাজ বেগম পুতুল (৪৫)। চিকিৎসকরা বলছেন শাহানাজ বেগম পুতুলের মাথা ফেটে গেছে, এজন্য তার মাথায চারটি সেলাই দেয়া হয়েছে।

ব্রাকের মাঠ কর্মকর্তা মিমি আক্তার বলেন, সোমবার সন্ধায় উত্তর সুজাপুর গ্রামের ছামিউলের বাড়ী থেকে ঋৃণের কিস্তি নিয়ে অফিসে ফিরার পথে শাহানাজ বেগম পুতুলসহ তার আত্ময়ী স্বজনেরা ঋৃণের বিষয় নিয়ে চড়াও হয়। এরপর কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে তার উপর হামলা করে, এবং কিল ঘুষি দিয়ে তাকে চরম আহত করে, এসময় তার সহকর্মি স্বাধীন ইসলাম সমিতির অন্য সদস্যদের সহতায় তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়।

ঋৃণ আবেদনকারী শাহানাজ বেগম পুতুল বলেন, মিমি আক্তার তাকে ঋৃণ দেয়ার কথা বলে তার ছেলের জন্ম সনদসহ সঞ্চয ও ডিপিএস এর টাকা নেয়, এরপর চার থেকে পাঁচ মাস বিভিন্ন অজুহাতে ঘোরানোর পরও তাকে কোন ঋন দেয়নি এবং জন্ম সনদ ও টাকা ফেরত দেয়নি। এঘটনা নিয়ে মাঠ কর্মি মিমি আক্তারের সাথে বাক-বিতন্ডা শুরু হলে, মিমি আক্তার ও তার সহকর্মি সাথে থাকা স্বাধীন ইসলামসহ তাকে মার ডাঙ্গ করে চরম আহত করে।

এই বিষয়ে ব্রাকের ফুলবাড়ী উপজেলা শাখা ম্যানেজার আনোয়ার হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, শাহানাজ বেগম পুতুল ঋনের জন্য আবেদন করার পর ওই এলাকায় খোজ খবর নিয়ে দেখা যায়, শাহানাজ বেগম ঋৃণ নিয়ে সময়মত ঋনের কিস্তি পরিশোধ করেননা, তাই তাকে ঋৃণ দেয়া হয়নি। এই ঘটনার জেরধরে শাহানাজ বেগম গত সোমবার মাঠ কর্মি মিমি আক্তারের উপর হামলা করেছে।

এই বিষয়ে ফুলবাড়ী থানার ওসি শেখ নাসিম হাবিব এর সাথে যোগাযোগ করা হলে, তিনি বলেন এঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষ থানায় অভিযোগ করেছে, ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে, তদন্ত শেষে দোষিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি