বুধবার ১৪ নভেম্বর ২০১৮
  • প্রচ্ছদ » আজকের পত্রিকা » ভূরুঙ্গামারীতে দোকানের মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ, সংঘর্ষ এড়াতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা



ভূরুঙ্গামারীতে দোকানের মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ, সংঘর্ষ এড়াতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা


আলোকিত সময় :
08.09.2018

ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি ঃ

কুড়িগ্রামের ভ‚রুঙ্গামারীর চর ভূরুঙ্গামারী ইউনিয়নের বাবুর হাট বাজারের দোকান ঘরের মালিকানা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে দ্ব›দ্ব চলছে। দ্ব›দ্ব নিরসনে দ্রæত প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকাবাসী।
জানা যায়, পারিবারিক সমস্যার কারনে উপজেলার বঙ্গ সোনাহাট ইউনিয়নের ভরতের ছড়া গ্রামের শাহজাহান আলী ২০১৩ সালে হাট কমিটি ও ব্যবসায়ীদের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে তার দোকান ঘরটিতে চর ভ‚রুঙ্গামারী ইউনিয়নের আরাজি পাইকডাঙ্গা গ্রামের শাহা আলমকে ব্যবসা করার অনুমতি প্রদান করেন। সম্প্রতি শাহজাহান আলী পূনরায় ব্যবসা করার জন্য শাহ আলমকে দোকান ঘড় ছেড়ে দিতে বললে সে অস্বীকৃতি জানায়। হাট কমিটি উভয় পক্ষকে নিয়ে বিষয়টি সমাধনের চেষ্টা করলে শাহ আলম দুই মাস সময় চেয়ে নেন। দুই মাস অতিবাহিত হওয়ার পরেও ঘড় না ছাড়ায় শাহজাহান আলী থানায় অভিযোগ করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানা পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল পরির্দশন করে। পরিদর্শনকারী দলের এস আই গনি জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে লোক মুখে শুনেছি শাহজাহান আলী শাহা আলমকে ঘড়টি ব্যবহার করতে দিয়েছেন, শাহ আলম ঘরের জায়গা লীজ নেয়ার দাবী করেন। এ বিষয়ে শাহ আলমের সাথে কথা বলে জানা যায়, তিনি লীজ নেয়ার জন্য ইউনিয়ন ভূমি অফিসের মাধ্যমে ডিসি অফিসে আবেদন করেছেন। অপর দিকে পূর্বের দোকান ঘড়টির মালিক শাহজাহান জায়গাটি লীজ পাওয়ার জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবরে অপর একটি আবেদন করেছেন। পাশাপাশি শাহ আলমের লীজ আবেদনের আপত্তি জানিয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) বরাবরে একটি আবেদন দাখিল করেছেন। শনিবার শাহজাহান আলী বাবুর হাট বাজারের ইজারাদার, ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসীদের নিয়ে কাগজ পত্র সহ থানায় হাজির হন। কিন্তু শাহ আলম অনুপস্থিত থাকেন।
এলাকাবাসীর অভিযোগ স্থানীয় রাজনৈতিক নেতা শামসুল আলম মেম্বার, রুহুল আমিন, নজরুল ইসলাম ও সাইফুর রহমান শাহ আলমের পক্ষে কলকাঠি নাড়ছে এবং ইজারাদর রাশেদুজ্জামান বাবুকে লাঞ্ছিত করেছে। তবে স্থানীয় রাজনৈতিক নেতারা তাদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন রাজনৈতিক কারনে আমাদের নামে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে।
চর ভ‚রুঙ্গামারী ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা বিমল চন্দ্র দাশ জানান, স্থানটি লীজ দেয়ার জন্য ডিসি অফিসকে অবহিত করা হয়েছে, এখনও সেটির চুড়ান্ত অনুমোদন হয়নি।
ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইমতিয়াজ কবির জানান, উভয় পক্ষকে প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র দেখাতে বলা হয়েছে।যে পক্ষের কাগজপত্র সঠিক থাকবে তাকেই ঘরের মালিকানা বুঝিয়ে দেয়া হবে।
বাবুর হাট বাজারের ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসীর দাবী মানবিক দিক বিবেচনা করে সরকারী বিধি মোতাবেক দরিদ্র শাহজাহান আলীকে লীজ প্রদান করা হলে বিষয়টির সুষ্ঠু সমাধান হবে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি