বৃহস্পতিবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮



কালকিনিতে আলোচিত আলামিন হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষীকে হত্যার চেষ্টা


আলোকিত সময় :
09.08.2018

কালকিনি প্রতিনিধি ঃ

মাদারীপুরের কালকিনিতে আলোচিত আলামীন হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী এনামুল ফকিরকে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আজ বৃহস্পতিবার সকালে এ হত্যা চেষ্টার প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগীর পরিবার। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
ভুক্তভোগী পরিবার সুত্রে জানাগেছে, উপজেলার বাশগাড়ী এলাকার মধ্যেচড় গ্রামের যুবক আলামীনকে সম্প্রতি রাতের আধারে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে হত্যা করে একটি বাগানের পাশে ফেলে রাখে দূর্র্বৃত্তরা। এ হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী হন একই এলাকার মজিবর ফকিরের ছেলে এনামুল ফকির। সে ওই মামলার সাক্ষী হওয়ায় একই এলাকার আকতার শিকদার, মামুন শিকদার ও ইসমাইল শিকদারসহ বেশ কয়েকজন মিলে তাকে গত বুধবার সন্ধ্যায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। পরে খাশেরহাট পুলিশ ফাড়ির সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্ের ভর্তি করেন। তার এ হাসপাতালে ভর্তির খবর শুনে পূনরায় আহত এনামুল ফকিরকে বুধবার রাতে সিআইডি ইন্সপেক্টর আহসানুল হকের মদদে আকতার শিকদার ও মামুন শিকদার হাসপাতালে বেডে গিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়ন করা হয়। এ হত্যা চেষ্টার ঘটনায় কালকিনি থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগীর ভাই রেজাউল ফকির।
ভুক্তভোগীর ভাই রেজাউলে ফকির সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ করে বলেন, আমার আহত ভাইকে ভর্তি করলে হাসপাতালে বেডে গিয়ে সিআইডি কর্মকর্তা আহসানুল হকের মদদে আকতার শিকদার ও মামুন শিকদার পূনরায় হত্যার চেষ্টা করে। আমি ওই সিআইডি কর্মকর্তার বিচার দাবি জানাই।
অভিযুক্ত আকতার শিকদারের সাথে এ বিষয় যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।
আলামীন হত্যা সামলার সি.আই.ডি তদন্ত কর্মকর্তা আহসানুল হক জানান, জেলা এস.পি এর দেয়া তথ্যর ভিত্তিতে আহত এনামুল ফকিরের সার্বিক অবস্থা জানার জন্য আমরা সেখানে অবস্থান করি।
এ ব্যাপারে কালকিনি থানার ওসি কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, মামলার সাক্ষী এনামুল ফকিরকে হত্যা চেষ্টার ঘটনায় থানায় একটি মামলা নেয়া হয়েছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি