বৃহস্পতিবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮
  • প্রচ্ছদ » আজকের পত্রিকা » সুনামগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজে আটটি বিভাগে শিক্ষক শূন্য, শিক্ষার্থীদের ভবিষৎ নিয়ে শংকিত অভিভাবকরা



সুনামগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজে আটটি বিভাগে শিক্ষক শূন্য, শিক্ষার্থীদের ভবিষৎ নিয়ে শংকিত অভিভাবকরা


আলোকিত সময় :
06.08.2018

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :
সুনামগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজে আটটি বিভাগে শিক্ষক পদ শূণ্য থাকায় পাঠদান সম্পূর্ণভাবে বন্ধ রয়েছে। বিপাকে পড়েছে প্রায় আড়াই হাজার শিক্ষার্থী। ফলে কলেজটি হারাতে বসেছে এর অতীত সুনাম । সরকারিভাবে ১৫ জন শিক্ষক থাকার কথা থাকলেও মাত্র আছেন ৭ জন। আটটি বিষয়েই দীর্ঘ বৎসর যাবৎ শিক্ষক নেই। শিক্ষক শূণ্য থাকার পরও অদৃশ্য কারণে কোনো শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে না। সংকট কাটাতে পাঠদানে হিমশিম খেতে হচ্ছে শিক্ষকদের। ফলে পাঠদানের ঘাটতি থাকায় পাশের হার দিন দিন কমতে শুরু করেছে। কলেজ বিমুখ হয়ে পরছেন শিক্ষার্থীরা। ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কিত শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সরকারি মহিলা কলেজটি ১৯৮৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হলেও কলেজটির সরকারিকরণ করা হয় ১৯৯৭ সালে। প্রায় আড়াই হাজার শিক্ষার্থী অধ্যুষিত এই কলেজ ২০১১ সালে ডিগ্রী পর্যায়ে উন্নীত করা হয়। ডিগ্রীতে উন্নীত হওয়ার পর থেকে অধ্যাবদি কোন পদ সৃষ্টি হয়নি। পদ সৃষ্টি না হওয়ায় শুরুতেই থমকে আছে প্রতিষ্ঠানটি। অন্যদের সাথে পাল্লা দিয়ে এগিয়ে যেতে পারছে না কলেজটি। সুনামগঞ্জ সরকারি মহিল কলেজের আটটি বিভাগে শিক্ষক সংকটের বিষয়টি নিয়ে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বারবার অবিহিত করা হলেও কোনো প্রতিকার মেলেনি। কলেজের একাধিক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা এ প্রতিনিধিকে জানান, আমলাতান্ত্রিক জটিলতা ও উদাসীনতার কারণে আটকে আছে সুনামগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষাদান কার্যক্রম ও এর ভবিষ্যৎ। কলেজের শিক্ষকরা জানান, এমনিতেই শিক্ষক সংকট থাকায় আমাদের অতিরিক্ত চাপ নিতে হচ্ছে। কিছু কিছু বিষয়ে কোন শিক্ষক না থাকায় ক্লাস নিতে আমরা হিমশমি খাচ্ছি । কলেজে কর্মরত একাধিক শিক্ষক জানান, ইতিহাস (১ বৎসর যাবৎ), রাষ্ট্রবিজ্ঞান (৩ বৎসর যাবৎ), দর্শন (৩ বৎসর যাবৎ), পর্দাথ বিজ্ঞান (৩ বৎসর যাবৎ), গণিত (২ বৎসর যাবৎ), জীব-বিজ্ঞান (১ বৎসর যাবৎ), মনোবিজ্ঞান (৩ বৎসর যাবৎ) সহ মোট আটটি বিভাগে শিক্ষকের পদ শূণ্য রয়েছে। তারা আরো বলেন, এ বিষয়টি নিয়ে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতণ কর্তৃপক্ষকে বারবার অবিহিত করা হলেও কোনো পদক্ষেপ নেয়নি তারা। ফলে প্রকৃত শিক্ষাগ্রহণ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ওই সব বিষয়ে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীরা।
এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ পরাগ কান্তি বলেন, প্রতিষ্ঠানটির সমস্যার শেষ নেই। শুধু শিক্ষকই নয়, প্রতিষ্ঠানটির অন্যান্য পদেও রয়েছে লোকবল সংকট। এই কলেজে পরীক্ষা কেন্দ্র হওয়ায় বছরে ১৬ টি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ৬২ জনের মধ্যে বিভিন্ন পদে কর্মরত আছেন মাত্র ৭ জন। এতে কাজের বাড়তি চাপ ও নানা ঝামেলা পোহাতে হচেছ প্রতিষ্ঠানটিতে কর্মরত শিক্ষক-কর্মচারীদের। শিক্ষক সংকটের বিষয়টি শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে প্রতিমাসেই লিখিতভাবে অবিহিত করে আসছি। স্থানীয় সাংসদ, অর্থ প্রতিমন্ত্রী মহোদয়কেও বিষয়টি জানিয়েছি। তিনি আরো বলেন, কয়েক দিন আগে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা শিক্ষার মান উন্নয়নের জন্য যে সব বিষয়ে শিক্ষক নেই সে সব বিষয়ে শিক্ষক নিয়োগের দাবিতে এক মানববন্ধন করেছে। আশা করি, সরকার আমাদের সব সমস্যা সমাধানে এগিয়ে আসবেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি