রবিবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮



আদমদীঘিতে টানা বর্ষনে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত


আলোকিত সময় :
04.08.2018

আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি :

গত কয়েক দিনের টানা বর্ষনে আদমদীঘি উপজেলার নি¤œাঞ্চল প্লাবিত হয়ে এক হাজার হেক্টর সদ্য রোপনকৃত আমন ধানগাছ পানিরে নীচে তলিয়ে রয়েছে। অপর দিকে জলাবদ্ধতার কারনে ধান বীজতলা ডুবে নষ্ট হওয়ায় এখন অনেক কৃষক এখনও জমিতে আমন ধান রোপন করতে না পেরে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। ফলে এবার আমনের আবাদ আশানুরুপ না হওয়ার আশংকা রয়েছে।
উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর সুত্রে জানাযায়, আদমদীঘি উপজেলায় একটি পৌরসভা ও ছয়টি ইউনিয়ন পরিষদ মিলে এবার ১২ হাজার ৫০০শত হেক্টর জমিতে হাইব্রিডজাত, উফশিজাত এবং স্থানীয়জাতের রোপা আমন ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই কৃষকরা প্রায় দুই হাজার হেক্টর জমিতে ধান লাগিয়ে ছিলেন। এদিকে গত কয়েক দিনের টানা বৃষ্টির কারনে নদী নালা গুলোতে পানি নিস্কাশনের পথ বন্ধ থাকায় উপজেলার নি¤œাঞ্চলের পূর্ব মুরইল, নসরতপুর, ধনতলা, কদমা, করজবাড়ী, দক্ষিন গনিপুর, রামপুরা, কাশিমালা, জোড়পুবুরিয়া, দমদমা, সান্দিড়া, প্রসাদখালিসহ প্রায় ১৮টি গ্রামের মাঠে জমিতে পানি উঠে প্লাবিত হয়েছ্ েএতে এক হাজারেরও অধিক সদ্য রোপন করা আমন ধান পানির নীচে তলিয়ে রয়েছে। এছাড়াও অধিকাংশ মাঠের ধান বীজতলা ডুবে নষ্ট হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ্য কৃষক মিজানুর রহমান, জিল্লুর রহমানসহ অনেকেই জানান, বন্যার পানি সরিয়ে গেলেও বীজ সংকটে কারনে জমিতে ধান রোপন করা কঠিন হবে। উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ কামরুজ্জামান জানান, অল্পদিনের মধ্যে বৃষ্টিপাত বন্ধ ও পানি সরিয়ে গেলে রোপা আমন ধানের তেমন ক্ষতির সম্ভাবনা থাকবেনা। তবে ক্ষতির পরিমান এখনও নির্ধারন করা হয়নি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি