সোমবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮



তিন জাতীয় অধ্যাপককে সংবর্ধনা দিলো ইউজিসি


আলোকিত সময় :
10.07.2018

নিজস্ব প্রতিবেদক :

সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত তিন জাতীয় অধ্যাপক ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম, ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান ও অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরীকে সংবর্ধনা দিয়েছে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি)।

সোমবার (৯ জুলাই) ইউজিসি মিলনায়তনে এ সংবর্ধনা দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন শিক্ষা সচিব মো. সোহরাব হোসাইন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইউজিসি সচিব ড. মো. খালেদ। সম্মাননা অনুষ্ঠানে ইউজিসি’র সদস্য অধ্যাপক ড. অধ্যাপক মোহাম্মদ ইউসুফ আলী মোল্লা, অধ্যাপক ড. দিল আফরোজা বেগম, অধ্যাপক ড. মো. আখতার হোসেন ও অধ্যাপক ড. এম. শাহ্ নওয়াজ আলি উপস্থিত ছিলেন।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, এই তিন বরেণ্য শিক্ষককে সম্মানিত করে দেশ ও জাতি সম্মানীত হলো। তাদের জ্ঞানের মশালে গোটা দেশ ও জাতি আলোকিত হয়েছে।

শুরুতেই বক্তব্য দিতে গিয়ে ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম বলেন, এবছর জুলাই মাসে আমার শিক্ষকতা জীবনের ষাট বছর পূর্ণ হলো। এই মুহুর্তে এই বিরল সম্মাননা আমার ভাগ্যে এসে জুটলো। পরম শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি জ্ঞানতাপস ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহর কথা। আমার পরম সৌভাগ্য যে আমি সরাসরি তার ছাত্র ছিলাম। মনে পড়ছে মুনীর চৌধুরী, ড. আহমদ শরীফের মতো শিক্ষকদের কথা।

ড. আনিসুজ্জামান বলেন, আমি মেট্রিক পাস করার আগে ঠিক করেছিলাম বাংলা সাহিত্যে পড়বো এবং শিক্ষকতা করবো। তখন কল্পনা করতে পারিনি যে আমার শিক্ষকতা জীবন কোথায় গিয়ে পূর্ণতা লাভ করবে। ভাবিনি ইমেরিটাস অধ্যাপক হবো, জাতীয় অধ্যাপক হবো ভাবাটা তো দূরের কথা। কাজেই যে সম্মান আমি পেলাম তা মাথা পেতে নিলাম।

অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী বলেন,আমাকে বিদেশে নামী বহুতল ভবন তৈরির সময় ডাকা হয়েছে, যাওয়ার সুযোগ এসেছে। কিন্তু আমি দেশ ছেড়ে যাইনি। তাতে দেশ আমাকে যা দিয়েছে, আমার মনে হয় বিদেশে কাজ করলে এই তৃপ্তিটুকু আমি পেতাম না।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি