বৃহস্পতিবার ১৯ জুলাই ২০১৮



আজ ফাইনালে উঠার লড়াই : রাতে মুখোমুখি হচ্ছে ফ্রান্স-বেলজিয়াম


আলোকিত সময় :
10.07.2018

আলোকিত স্পোর্টস ডেস্ক :

সেমি ফাইনাল ম্যাচ, কিন্তু তাতে যেনো পুরোপুরি ফাইনালের আবেশ। কোনো টুর্নামেন্টের যে কোনো সেমি ফাইনালই আক্ষরিক অর্থে ফাইনাল। টুর্নামেন্টে টিকে থাকতে হলে বা শিরোপার মঞ্চে পা দিতে হলে জিততে যে হবেই। ফ্রান্স-বেলজিয়ামকেও জিততে হবে আজ (১০ জুলাই) সেন্ট পিটার্সবার্গে অনুষ্ঠিত লড়াইয়ে। কিন্তু রাশিয়া বিশ্বকাপে দুর্দান্ত দুই দলের এক দলকে তো বিদায় নিতেই হবে। আর অন্য দলটা পাবে ফাইনালের টিকিট। ট্রফি থেকে তারা থাকবে মাত্র একধাপ দূরে। বাংলাদেশ সময় রাত ১২ টায় শুরু হবে খেলা।

এর আগে অন্য যে কোনো সময় ফ্রান্স-বেলজিয়াম লড়াই হলে তা হয়তো রোমাঞ্চকর ম্যাচের স্বীকৃতি পেতো না কখনোই। কিন্তু রাশিয়া বিশ্বকাপে দুই দলের লড়াইটা তো রোমাঞ্চের চেয়েও বেশি কিছু নিয়ে হাজির। দুই দল দারুণ ফুটবল খেলে ম্যাচটিকে নিয়ে গেছে দর্শক আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে। এই টুর্নামেন্টে দুই লাতিন পরাশক্তি আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলের বিদায়ও হয়েছে ইউরোপের এই দুই দলের হাতে। শেষ ষোলতে ফ্রান্সের কাছে আর্জেন্টিনা, আর কোয়ার্টার ফাইনালে বেলজিয়ামের কাছে ব্রাজিল হেরে বিদায় নিয়েছে।

যদিও ফ্রান্স একবারের শিরোপা জয়ী দল। টপ ফেভারিটের তালিকায় না থাকলেও রাশিয়া বিশ্বকাপে তাদেরও সম্ভাবনা দেখছিলেন কেউ কেউ। তারুণ্য নির্ভর দুর্দান্ত একটা দল যে তাদের। তার উপর ডাগআউটে রয়েছেন দিদিয়ের দেশম। যার অধিনায়কত্বেই বিশ্বকাপ জিতেছিল ফ্রান্স। কিলিয়ান এমবাপে, পল পগপা, উসমানে ডেম্বেলে, আতোইন গ্রিজম্যানের মতো তারকা খেলোয়ার রয়েছে তাদের দলে। কিন্তু বেলজিয়াম ?

না, ফেভারিটের আলোচনায় কখনোই ছিল না তারা। কিন্তু একঝাঁক নন্দিত ফুটবলার রয়েছে তাদের দলেও। রোমেলু লুকাকু, আইডেন হ্যাজার্ড, কেভিন ডি ব্রুইনদের দলটাকে বলা হচ্ছে বেলজিয়ামের সোনালী প্রজন্ম। সেই সোনালী প্রজন্মে ভর করেই এখন বিশ্বকাপ শিরোপার দ্বারপ্রান্তে দলটি। বিশ্বকাপের যাদের সেরা সাফল্য ১৯৮৬ বিশ্বকাপে চতুর্থ হওয়া।

এই দুই দলের সম্পর্কটা অবশ্য খুবই ঘনিষ্ট বলতে হবে। মোট ৭৪ বার মুখোমুখি লড়াই হয়েছে এই দুই দলের। যেখানে অবশ্য বেলজিয়ামের জয়ের পাল্লাই ভারি। ৩০ বার জিতেছে বেলজিয়াম, ২৪ ম্যাচে ফ্রান্স আর ১৯ ম্যাচ ড্র হয়। বিশ্বকাপে অবশ্য দুই দলের ২ বারের দেখাতেই জয় পেয়েছিল ফ্রান্স। ১৯৮৬ বিশ্বকাপে বেলজিয়াম চতুর্থ হয়েছিল ফ্রান্সের কাছে তৃতীয়স্থান নির্ধারণী ম্যাচে হেরে।

কিন্তু বেলজিয়াম এখন পর্যন্ত এবারের বিশ্বকাপে অপরাজেয়। সবচেয়ে বেশি গোল করা দলটিকে হারানো ফ্রান্সের জন্যও সহজ হওয়ার কথা নয় কখনোই। অপরাজেয় দল ফ্রান্সও। তবে গ্রুপ পর্বে একটি ম্যাচ ড্র করে তারা। আর নক আউট পর্বে তো মুগ্ধকর ফুটবল খেলেছে দুই দলই। শেষ ষোলতে আর্জেন্টিনাকে ৪-৩ গোলে হারায় ফ্রান্স। আর বেলজিয়াম ৩-২ গোলে জাপানকে হারিয়ে কোয়ার্টারে উঠে আসে। সেই ম্যাচটি এক রকম ইতিহাসই হয়ে থাকবে। ২-০ গোলে পিছিয়ে থেকেও অবশেষে জয় পায় বেলজিয়াম।

এরপর কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলকে ২-১ গোলে পরাজিত করে সেমি ফাইনালে বেলজিয়াম আর দুরন্ত উরুগুয়েকে ২-০ গোলে হারিয়ে সেমিতে ফ্রান্স। আজ দুই দলের লড়াই। যারা জিতবে ফাইনালের উঠার লড়াইয়ে তাদের সঙ্গী হবে ইংল্যান্ড বা ক্রোয়েশিয়া।

দুই দলের কোচই অবশ্য তাদের শিষ্যরা প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন। এ ম্যাচে ফ্রান্স কোচ দিদিয়ের দেশম আর বেলজিয়াম কোচ রবার্তো মার্তিনেজেরও একটা লড়াই হবে তাই। দর্শকরা চেয়ে থাকবে শেষ পর্যন্ত কার জয় হয় সেটি দেখার জন্যে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি