বৃহস্পতিবার ১৯ জুলাই ২০১৮



জহুর আহমদ চৌধুরী ছিলেন একজন নিঃস্বার্থ রাজনৈতিক ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক


আলোকিত সময় :
08.07.2018

আলোকিত নিউজ ডেস্ক :
জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর বিশ্বস্ত সহচর, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন ইস্টার্ন জোনের চেয়ারম্যান, বঙ্গবন্ধু সরকারের তৎকালীন স্বাস্থ্য, শ্রম, সমাজকল্যাণ ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী চট্টগ্রাম শহর আ’লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মরহুম জননেতা জহুর আহমদ চৌধুরীর ৪৪তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আজ (৮ জুলাই) রবিবার বিকেল ৫টায় এক স্মরণ সভা জেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড, চট্টগ্রাম মহানগর এ স্মরণ সভার আয়োজন করেন। সংগঠনের যুগ্ম আহŸায়ক মিজানুর রহমানের সজীবের সভাপতিত্বে ও সিনিয়র সদস্য মো. সাজ্জাদ হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম প্রিমিয়ার বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি) ও আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন সমাজ বিজ্ঞানী ড. অনুপম সেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিট কমান্ডার মোজাফফর আহমদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল হক বীর প্রতীক, শহীদুল হক চৌধুরী সৈয়দ, মো. ইউনুচ, মো. ইলিয়াস, সাধন চন্দ্র বিশ^াস, এফএফ আকবর খান, মো. খোরশেদ আলম (যুদ্ধাহত) পান্টু লাল সাহা, মো. সলিমুল্লাহ, মো. নুরু উদ্দিন চৌধুরী, মহানগর যুব লীগের যুগ্ম আহŸায়ক ফরিদ মাহমুদ, মরহুম জননেতা এম এ আজিজের পুত্র সাইফুদ্দিন খালেদ বাহার, মরহুম জননেতা জহুর আহমদ চৌধুরীর পুত্র ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবার বর্গের সভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী, মরহুম জহুর আহমদ চৌধুরীর পুত্র শরফুদ্দিন চৌধুরী রাজু, মরহুম জননেতা আলহাজ¦ এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর পুত্র বোরহান উদ্দিন চৌধুরী সালেহীন, যুবলীগ নেতা নাছির উদ্দিন, দেলোয়ার হোসেন ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবার বর্গের জেলা শাখার সেক্রেটারি উত্তম বড়–য়া।
স্বাগত বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের কেন্দ্রীয় সদস্য সরোয়ার আলম মনি। মরহুম জননেতা জহুর আহমদ চৌধুরী স্মরণে স্মৃতিচারণ করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম কাজী ইনামুল হক দানুর সন্তান কাজী রাজিশ ইমরান। স্মরণ সভায় মহানগর ও থানা কমান্ডের বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের নেতৃবৃন্দ ও আওয়ামী-যুবলীগের নেতৃবৃন্দরা উপ¯ি’ত ছিলেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিশিষ্ট সমাজ বিজ্ঞানী ও চট্টগ্রাম প্রিমিয়ার বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি) ড. অনুপম সেন বলেন, মরহুম চৌধুরী আহমদ ছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর। বাংলাদেশ আ’লীগের অন্যতম কান্ডারী হিসেবে তাঁর অবদান অবিস্মরণীয়। বঙ্গবন্ধু সরকারের তৎকালীন স্বা¯’্য, শ্রম, সমাজকল্যাণ ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী থাকাকালীন সময় সরকারের উন্নয়নমুখী কর্মকাÐে তিনি যে গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা রেখেছিলেন তা বাঙালি জাতি কখনো ভুলবে না। চট্টগ্রাম শহর আ’লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জননেতা জহুর আহমদ চৌধুরী ছিলেন একজন নিঃস্বার্থবান রাজনৈতিক ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক। সাবেক এ মন্ত্রী উপমহাদেশের শ্রমজীবী মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা, গণতান্ত্রিক আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধে তাঁর অবদান চিরস্মরণী হয়ে থাকবে। তাই তিনি মৃত্যুর পরও মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের রাজনৈতিক শক্তির পথ প্রদর্শক হিসেবে আমাদেরকে প্রেরণা যুগিয়ে যাচ্ছেন। সভার শুরুতে মরহুম জননেতা জহুর আহমদ চৌধুরীর স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি