রবিবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮



লক্ষীপুরে শিক্ষকের যৌন হয়রানি তদন্তে প্রমাণিত


আলোকিত সময় :
05.07.2018

লক্ষীপুর প্রতিনিধি :
লক্ষীপুর সদর উপজেলার উত্তর চররমণী মোহন করাতির হাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের খন্ডকালীন শিক্ষক তোফায়েল আহমেদ ছাত্রীদের যৌন হয়রানি করার প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি। ভয় দেখিয়ে তিনি অন্তত ৩০ জন ছাত্রীকে যৌন হয়রানি করেছেন। বুধবার (৪ জুলাই) তদন্ত কমিটির প্রধান সদর উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার শহিদুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আমরা সরেজমিন গিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ ৬-৭ ছাত্রী, অভিভাবক, শিক্ষক ও এলাকাবাসীসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলেছি। সেখানে অন্তত ৩০ জন ছাত্রীর যৌন হয়রানির প্রমাণ পেয়েছি। এ নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হবে। ঘটনা জানাজানির পর থেকে এ শিক্ষক পলাতক রয়েছেন। এর আগে গত মঙ্গলবার (৩ জুলাই) দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ শাজাহান আলী ওই বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি অভিযোগের বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। জানা গেছে, ওই বিদ্যালয়ের খন্ডকালিন শিক্ষক তোফায়েল আহমেদের বিরুদ্ধে স¤প্রতি ছাত্রীদের ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠে। এতে ২৮ জুন ইউএনওর নির্দেশে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে উপজেলা শিক্ষা বিভাগ। এতে সদর উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার শহিদুল ইসলামকে প্রধান, ঘটনার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন ও পাশ্ববর্তী পশ্চিম চর রমণী মোহন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম মাওলাকে সদস্য করা হয়। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ইউএনও মোহাম্মদ শাজাহান আলী বলেন, এমন ঘটনা লজ্জাজনক। তদন্ত প্রতিবেদনের আলোকে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য থানা পুলিশের কাছে পাঠাবো। অভিযুক্ত শিক্ষককে যেখানেই পাওয়া যাবে, তাকে পুলিশে ধরিয়ে দেওয়ার জন্য সকলের কাছে আহবান জানাচ্ছি। প্রসঙ্গত, শিক্ষক তোফায়েলের বাড়ি সদর উপজেলার পার্বতীনগর ইউনিয়নের মাছিমনগর গ্রামে। তিন বছর ধরে তিনি উত্তর চর রমণী মোহন করাতির হাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতার পাশাপাশি স্থানীয় হাওলাদার বাড়িতে থেকে পাশর্^বর্তী মসজিদে ইমামতি করতেন। সকালে তিনি আরবি শিক্ষা ও রাতে শিক্ষার্থীদের পড়াতেন। এ সুবাদে কোমলমতি ছাত্রীদের পাগলের ভয় দেখিয়ে কৌশলে ছাত্রীদের ধর্ষণ ও যৌন হয়রানি করতেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি