শুক্রবার ২০ জুলাই ২০১৮



মাদক ব্যবসায়ীদের ষড়যন্ত্রের শিকার আওয়ামী লীগ নেতা


আলোকিত সময় :
15.06.2018

সাইফুর রহমান :

মাদক ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সব সময় সামনে থেকে প্রশাসনের সাথে সহযোগিতা করে প্রতিবাদ ও প্রতিহত করেছি। আমি মাদকের বিরুদ্ধে ছিলাম বলেই, “যারা ব্যবসা করতে পারেনি, তারাই হয়তো আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছে” এমনটাই বলছিলেন মাদকের প্রাথমিক তালিকায় নাম আসা সবুজবাগ থানা আওয়ামী লীগের অন্যতম নেতা, আলহাজ্ব গোলাম মোস্তফা।

তিনি বলেন,আমার রাজনৈতিক জিবনে কখনো অন্যায়ের সাথে আপোশ করিনি, আর করবো না। তবে , আশা করি সুষ্ঠুভাবে তদন্ত করলে সত্য বেড়িয়ে আসবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি তিনি অনুরোধ জানিয়ে বলেন, কেন সৎ ভাবে জিবন যাপন করেও মাদকের তালিকায় আমার বা পরিচ্ছন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিদের নাম আসবে? আশা করবো সুষ্ঠু তদন্তের মাধম্যে সঠিক তালিকা জাতির সামনে প্রকাশ পাবে!!?

কোন নিরাপরাধ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মাদকের অভিযোগ এলে মহানগররের নেতাদের করনীয় প্রশঙ্গে জানতে চাইলে, ঢাকা মহানগর দক্ষিন আওয়ামী লীগ এর সধারন সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, এ ধরনের নিরপরাধ নেতাকর্মীদের পাশে শক্ত অবস্থানে থাকবে মহানগর আওয়ামী লীগ।

এদিকে গোলাম মোস্তফা পূর্বের ন্যায় শক্তভাবে মাদকের বিরুদ্ধে ছিলাম, আছি, থাকবো মন্তব্য করে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মাদকের বিরুদ্ধে জিরোট্রলারেন্স ও প্রশাসনের মাদক বিরোধী অভিযান অবশ্যই প্রশংসনিয়। আজকের যুবক আগামী দিনের ভবিষ্যৎ গঠনের নেতৃত্ব দিবে। হতাশা জনক হলেও সত্য যুব সমাজের বড় একটি অংশ মাদকের সাথে জড়িয়ে পড়েছিলো। সরকারের দৃঢ় পদক্ষেপে মাদকসেবী থেকে ব্যবসায়ীরা আজ আতঙ্কে।

আমি বিশ্বাস করি প্রতিটি স্থর থেকে, স্ব স্ব অবস্থান থেকে মাদকের বিরুদ্ধে এগিয়ে এলে মাদকর্নিমূল সম্ভব। মাদক ব্যবসায়ীরা যেমন অর্থশালী, তেমন বড় বড় হাতের ছায়ায় হয় তারা আরো বেপরয়া।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি