সোমবার ১৮ জুন ২০১৮
  • প্রচ্ছদ » কক্স বাজার » প্রসঙ্গ-কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচন
    জনবিচ্ছিন্ন ও ঠিকাদার মার্কা জনপ্রতিনিধিকে না বলুন



প্রসঙ্গ-কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচন
জনবিচ্ছিন্ন ও ঠিকাদার মার্কা জনপ্রতিনিধিকে না বলুন


আলোকিত সময় :
14.06.2018

গণতান্ত্রিক দেশে জনগণের ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি ছাড়া কোন জনপদের সমৃদ্ধ উন্নয়ন মোটেও কল্পনা করা যায় না। আর সেটি যদি হয় সৎ, নিষ্ঠাবান, দেশপ্রেমিক, প্রভাবশালী জনদরদী এক কথায় ডাইনামিক, তাহলেই আমরা একটি বদলে যাওয়া কক্সবাজার পৌর শহরকে দেখতে পাবো খুব শীঘ্রই। মনে রাখবেন,এর ব্যাতিক্রম ঘটলেই আমাদের কপালে দূঃখ আছে। কাকে নেতা বানাবেন আর বানাবেন না, ব্যালেট কিন্তু এখনও আপনার হাতে। কার হাতে দায়িত্ব দিলে এই শহরের উন্নয়ন হবে নতুন করে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় এসেছে আবার।

আগামী ২৫ জুলাই কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচন। কক্সবাজার পৌরসভার জন্ম ১৮৬৯ সালে। সেই যাত্রার ১৪৮ বছর পার হলেও আশানুরূপ কোন পরিবর্তন এখনও চোখে পড়ে না। যেখানে ব্যাপক উন্নয়ন হওয়ার কথা ছিল কিন্তু সেই তুলনায় বলতে গেলে এই শহরের কিছুই হয়নি। সাধারণ মানুষের ম্যান্ডেড নিয়ে পরিবর্তনের স্বপ্ন দেখিয়ে কত রথি-মহারথি চলে গেছেন। রেখে গেছেন একটি অপরিচ্ছন্ন, অনিরাপদ, ঘিঞ্জি, অপরিকল্পিত ও অনুন্নত একটি পৌরশহর। বর্তমান যে পরিস্থিতি, পরিবেশ-প্রতিবেশের কথা বাদই দিলাম, কক্সবাজার পৌরসভার অবকাঠামোগত উন্নয়নের যে অগ্রযাত্রা – তা আগামী প্রজন্মের বসবাসের জন্য হয়ে উঠবে এক বিষফোঁড়া।

মাত্র ৩২.৯০ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের কক্সবাজার পৌসভার ২০০১ সালের আদমশুমারী অনুযায়ী জনসংখ্যা ১ লাখ ৬৭ হাজার ৪৭৭ জন বলা হলেও বর্তমানে সাড়ে তিন লাখেরও বেশি জনসংখ্যার বসবাস এই শহরে। নির্বাচন কমিশনের সর্বশেষ আপডেট মতে ভোটার প্রায় ৮৪ হাজার। ঢাকা ও চট্টগ্রামের পরে নানা দিক দিয়ে কক্সবাজার গুরুত্বপূর্ণ শহর। সৃষ্টিকর্তার অপার মহিমায় প্রাকৃতিক ও ভৌগোলিক কারণে নিঃন্দেহে একটি সমৃদ্ধ জনপদ এই কক্সবাজার। পর্যটন রাজধানী খ্যাত কক্সবাজার পরিচিতির ক্ষেত্রে দেশের গন্ডি পেরিয়ে এখন বিদেশের মাটিতেও প্রতিনিয়ত কড়া নাড়ছে। পর্যটনখাতসহ অর্থনৈতিক উন্নয়নের অযুত সম্ভবনার এইজনপদের মূলকেন্দ্র হচ্ছে কক্সবাজার পৌরসভা। সেই পৌরসভার পৌর পিতা কেমন হওয়া দরকার তা নির্বাচন করবে এই এলাকার মানুষ। কক্সবাজারকে বদলে দিতে আগামী নির্বাচনে একজন ডাইনামিক পৌর পিতা চাই। আজকের পদক্ষেপ আগামীর পরিকল্পিত কক্সবাজার, এই শ্লোগান ধারণ করা, একঝাক তরুণদের সামনে এগিয়ে চলার সামাজিক সংগঠন পরিকল্পিত কক্সবাজার আন্দোলন।

কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচনকে সামনে রেখে বিভিন্ন প্রার্থীকে নির্বাচনের মাঠে নামতে দেখা যাচ্ছে। ইতোমধ্যে কক্সবাজার পর্যটন শহরে নির্বাচনী হাওয়াও বয়তে শুরু করেছে। নতুন-পুরাতন মিলে একাধিক মেয়র প্রার্থী ও কাউন্সিলরসহ শতাধিক প্রার্থী মাঠে নামার গুঞ্জন বাতাসে ভাসছে। এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, এবার মাঠে দেখা মিলবে পরিচ্ছন্ন,তরুণ-তরুণী ও শিক্ষিত নারী-পুরুষ প্রার্থীদের। বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমের প্রচার-প্রচারণা থেকে এমনটাই প্রতিয়মান হচ্ছে। পরিকল্পিত কক্সবাজার আন্দোলনও চায় যোগ্য পৌরপিতা নির্বাচিত হোক। যাতে কক্সবাজার পৌরসভার টেকসই উন্নয়ন হয়। সব কথার শেষ কথা, জনবিচ্ছিন্ন, ঠিকাদার মার্কা জনপ্রতিনিধি ও কালো টাকায় ভোট কেনা প্রার্থীকে না বলুন।

লেখক : আব্দুল আলীম নোবেল
সমন্বয়ক, পরিকল্পিত কক্সবাজার আন্দোলন



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি