বৃহস্পতিবার ১৯ জুলাই ২০১৮
  • প্রচ্ছদ » খেলা » বিশ্বকাপ ফুটবলের উন্মাদনায় ভাসছে পটুয়াখালী শহর …



বিশ্বকাপ ফুটবলের উন্মাদনায় ভাসছে পটুয়াখালী শহর …


আলোকিত সময় :
12.06.2018

এম.নাজিম উদ্দিন,পটুয়াখালী প্রতিনিধি:
দুনিয়া কাপানো বিশ্বকাপ ফুটবলের উন্মাদনায় ভাসছে পটুয়াখালী শহর। ঈদের কেনা কাটার চেয়ে আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলসহ বিভিন্ন দেশের পতাকা, জার্সি কেনা ও বিলবোর্ড,ব্যানার, ফেস্টুন বানানোর জন্য ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে পটুয়াখালীর যুবক ও কিশোররা। আগামী ১৪ জুন শুরু হতে যাচ্ছে রাশিয়া বিশ্বকাপ ২০১৮।

সারা বিশ্বের কোটি কোটি ফুটবল পাগল ভক্তের ন্যায় পটুয়াখালীর ক্রীড়া মোদীরা নিজেদের পছন্দের দলের পতাকা টানানো প্রতিযোগীতায় মেতে উঠেছে। বাড়িরছাদ, ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান, অফিস-আদালত, রাস্তার মোড়, গাছেরডাল, বাঁশের মাথায় শোভা পাচ্ছে আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, ফ্রান্স, ইতলি, র্জামানি ও জাপানসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের জাতীয় পতাকা,বিলবোর্ড, ব্যানার ও ফেস্টুন।

একই বাড়িতে একাধিক দেশের পতাকাও লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এছাড়াও মোটরযান, রিকশা-ভ্যান, বাইসাইকেল সহ বিভিন্ন যানবাহনে লাগানো হয়েছে বিভিন্ন দেশের পতাকা,বিলবোর্ড,ব্যানার ও ফেস্টুন। তবে পতাকা ও ব্যানারের সবচেয়ে বড় সাইজও সংখ্যায় এগিয়ে রয়েছে আর্জেন্টিনা তার পাশাপাশি রয়েছে ব্রাজিল।

দর্জির দোকানগুলো পতাকা বানানোর কাজে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে। তরুণ ও যুবকরা তাদের পছন্দের দলের পতাকার রঙের গেঞ্জিগায়ে পরার প্রতিযোগিতায় মেতে উঠেছে। ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে বিশ্বকাপ ফুটবল নিয়ে তুমুল উম্মদনা। ফুটবল অনুরাগীদের মাঝে এখন চলছে স্ব-স্ব দলের নামকরা খেলোয়ারদের গুনর্কীতন। রাস্তার মোড়ে চায়ের দোকানে অফিস- আদালতসহ সর্বত্রই বিশ্বকাপ ফুটবল নিয়ে চলছে বির্তক। মাঠে মেসি-কাকা রুনির লড়াইয়ের চেয়ে বাউফল উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার গুলোতে পতাকা বিক্রির ধুমপড়েছে। সেই সঙ্গে টেলিভিশন বিক্রি ব্যপক হারে বেড়েছে।

পটুয়াখালী শহরের বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক্সের দোকানে নানান কোম্পানির টেলিভিশনের সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের পুরুস্কার প্রাপ্তির ঘোষনা দিয়ে ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণনের জন্য মাইকে ব্যাপক প্রচার-প্রচারনা চালানো হচ্ছে। আবার গ্রামগঞ্জের যুবকরা তাদের সমর্থিত দল নিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে বাক যুদ্ধ। তারা প্রতিেিযাগিতায় নেমেছে কারা কত বড় পতাকা ও ব্যানার বানাতে পারে।

এছাড়া টেলিভিশনের সামনে পারিবারিক পরিবেশ ছেড়ে নিজ দলের সমর্থকদের নিয়ে একসঙ্গে খেলা দেখার জন্য গ্রামগঞ্জের ক্লাবগুলো সংস্কার করা হচ্ছে। বিদুৎ এর লোডশেডিংয়ের কারনে কোথাও আগাম জেনারেটর ভাড়া করা হচ্ছে। আবার অনেক এলাকায় চাঁদা তুলে জেনারেটর ক্রয় করা হচ্ছে।

পটুয়াখালী শহরের বিভিন্ন এলাকায় আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলের সমর্থকরা পৃথক পৃথক কমিটি গঠন করে প্রস্তুতি নিচ্ছে শোডাউনের জন্য। শহরের পৌরসভা মোড়ে মেসির ছবিসহ একটি বিশাল বিলবোড টানানো হয়েছে। বিলবোর্ডে একজন কাউন্সিলরের ছবিসহ ৫২ জন যুবকের ছবি রয়েছে। এর অধিকাংশ যুবক মুসলিমপাড়ার বলে স্থানীয়রা জানায়। শহরের সর্বত্র ছাত্র, যুবক, কিশোররা ঈদের কেনা কাটার চেয়ে আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলের জার্সি ও পতাকা কেনার পাশাপাশি বিলবোর্ড, ফেস্টুন, ব্যানার তৈরীতে ব্যস্ত হয়ে পরেছে। সামাজিক মিডিয়া ফেসবুকেও চলছে প্রতিযোগিতা। ফেসবুকে দেখা গেছে ১৮মাস বয়সী এক শিশু কন্যা মেসিসহ আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে মিসকি হাসি হাসতে। খোজ নিয়ে জানা গেছে, শিশুটি হচ্ছে জারতাজ মাহজাবিন রাইশা। তার বাবা পটুয়াখালী প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক যমুনা টিভি’র প্রতিনিধি জাকারিয়া হৃদয় জানান, রাইশাকে নিয়ে তার মা ফারহানা ফেরদৌস সাথী ঈদের কেনা কাটার জন্য মার্কেটে যায়। মার্কেটের দোকানে দোকানে আর্জিন্টিনা ও ব্রাজিলের পতাকা ও জার্সি দেখতে পেয়ে, আর্জিন্টিনার জার্সি দেয়ার জন্য বায়না করে। শিশু কন্যার বায়না সামলাতে না পেরে আর্জিন্টিনার
জার্সি কিনে দেয় মা সাথী। এ জার্সি কেনার সাথে সাথে গায়ের জামা খুলে মেসির ছবিসহ জার্সি গায় দেয় রাইশা। দুদিনেও এ জার্সি গায় থেকে খুলছে না। সে জার্সি গায় দিয়ে রাতেও ঘুমায়। যদি কেউ নিয়ে যায়। এ দৃশ্য এখন প্রায় ঘরে ঘরে দেখা যায়। বিশ্বকাপের উন্মানদনা শহরের সর্বত্রই চলছে। বাংলাদেশ কবে বিশ্বকাপে খেলবে সুশিল সমাজের মন্তব্য।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি